Mahfuzur Rahman Manik
বন্দি সংকটে কারাগার!
নভেম্বর 16, 2016
নেদারল্যান্ডস: অপরাধীর অভাবে কারাগার এখন হােটেল
নেদারল্যান্ডস: অপরাধীর অভাবে কারাগার এখন হােটেল

কারাগারের কথা বললে অনেকের সামনেই হয়তো এক বন্দিশালার চিত্র ফুটে ওঠে, লোহার শিকের ভেতর দয়ামায়াহীন এক পরিবেশ। কোথাও একা কিংবা গাদাগাদি করে থাকা 'অপরাধী'র আবাস। যেখানে স্বাধীনতা নেই, থাকার সুন্দর ব্যবস্থা নেই। কর্তৃপক্ষের হুকুম তামিল ছাড়া কোনো কাজ নেই। এর মধ্যে রিমান্ড তো মূর্তিমান এক ভীতির নাম। কিন্তু কারাগার যে তা নয় সেটা কে বলবে? বলাই বাহুল্য, আমাদের কারা অধিদপ্তরই বলছে, 'কারাগার আধুনিক সভ্যতায় বন্দিদের সংশোধন ও সুপ্রশিক্ষিত করে সভ্য সমাজের মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার প্রতিষ্ঠান'। কারাগারের এত সুন্দর সংজ্ঞা থাকার পরও আমাদের চোখে কেন এমন অসহায় চিত্র! উত্তরটা সহজ। আমরা বলছি সংশোধনাগার, কিন্তু ততটা করতে পারছি না। যারা সত্যিকারার্থেই সংশোধনাগার হিসেবে কারাগারকে ব্যবহার করছে তাদের চিত্রটা দেখা প্রয়োজন। এ ক্ষেত্রে নেদারল্যান্ডস সম্ভবত বড় উদাহরণ।
আমাদের কারাগারে ঠাঁই নেই। জেলকোড অনুযায়ী প্রত্যেক বন্দির জন্য জায়গা বরাদ্দ ৩৬ বর্গফুট। সে অনুযায়ী দেশের ৬৮টি কারাগারে বন্দি ধারণক্ষমতা ৩৪ হাজার ৪৬০। অথচ বন্দি আছে তার দ্বিগুণের চেয়ে বেশি। এ বছরের জুনের তথ্যমতে, বন্দি সংখ্যা ৭৩ হাজার ৩০০। অথচ নেদারল্যান্ডসে কারাগারগুলো বন্দি সংকটে ভুগছে। ১০ নভেম্বর বিবিসি ম্যাগাজিনে 'দ্য ডাচ প্রিজন ক্রাইসিস : অ্যা শর্টেজ অব প্রিজনারস' শিরোনামের প্রতিবেদনটিতে উঠে এসেছে নেদারল্যান্ডসের চিত্র। সেখানে ৫০টি কারাগারের মধ্যে ১৯টি বন্ধ হয়ে গেছে। ৮টি বন্ধ হওয়ার প্রক্রিয়ায় রয়েছে। কিছু কারাগার ভাড়া দেওয়া হচ্ছে, হোটেল হিসেবেও ব্যবহৃত হচ্ছে। আর কয়েকটিতে থাকছেন শরণার্থীরা। অথচ এক দশক আগেও ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে বন্দিসংখ্যায় নেদারল্যান্ডস ছিল অন্যতম শীর্ষে। আর এখন নিম্নে। এক লাখে ৫৭ জন। ইংল্যান্ডে লাখে ১৪৮। এর পেছনের কারণও বিবিসি নেদারল্যান্ডসের কর্তৃপক্ষের তরফে এনেছে। অন্যতম বিষয় পুনর্বাসন। কারাগারগুলো যখন পুনর্বাসন ও সংশোধনাগার হিসেবে ব্যবহৃত হয়, তখন অপরাধী এ প্রক্রিয়ায় নিজেকে শুধরে নিতে পারে। বন্দিত্বকালীন সময়ে তার পুনর্বাসনের জন্য নানাবিধ কাজ শেখানো ও প্রশিক্ষণের প্রয়োজন। যাতে সমাজে ফিরে গিয়ে স্বাভাবিক মানুষ হতে পারে। কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতে পারে। এ প্রক্রিয়ায় আমাদের আরও জোর দেওয়া প্রয়োজন। কারণ দেখা যায়, একই অপরাধী কারাগারে থেকে ফিরে আবার সে অপরাধে জড়িয়ে পড়ে কারাগারে আসে।
prisonনেদারল্যান্ডসে অবস্থার উন্নতির এও কারণ, সেখানে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়। অপরাধী নেশাগ্রস্ত হলে তার নেশা ছাড়ানোর চিকিৎসা করানো হয়। টাকার সমস্যা থাকলে তাকে ঋণের ব্যবস্থা করা হয়। এমনকি অনেককে কারাগারেও নেওয়া হয় না; হয়তো সে স্বাভাবিক জীবনযাপনই করছে, চাকরি করছে, পরিবারের সঙ্গে বাস করছে_ এ অবস্থায়ও ভিন্ন উপায়ে শাস্তি দিয়ে তাকে সংশোধন করছে। এভাবেই সেখানে অপরাধ কমছে, ফাঁকা হচ্ছে কারাগার। বলাই বাহুল্য, সেখানে কারাগারে বন্দিদের থাকার ব্যবস্থাও অনেক উন্নত।
আমাদের জন্য নেদারল্যান্ডসের উদাহরণ স্বপ্নের মতো হতে পারে। বন্দিদের জন্য যে মানবিক পরিবেশ প্রয়োজন তা এখানে নেই বললেই চলে। স্বাভাবিক কারাবন্দির তুলনায় দ্বিগুণ হলে বন্দিরা কতটা মানবেতর জীবনযাপন করছে, বলার অপেক্ষা রাখে না।
নেদারল্যান্ডস যেখানে কারাগার একেবারে বন্ধ হওয়ার আশঙ্কা করছে, সেখানে আমাদের অবস্থান কেন বিপরীত? বিষয়টি নিয়ে নিশ্চয়ই কর্তৃপক্ষ ভাববেন। মানবিক সমাজ নিশ্চিত হলে কারাগারেও মানবিক পরিবেশ নিশ্চিত হতে পারে।

ট্যাগঃ , , , ,

One comment on “বন্দি সংকটে কারাগার!”

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।