Mahfuzur Rahman Manik
স্মৃতির টাইম মেশিন
আগস্ট 16, 2015

Memory-মানুষের জীবনে প্রতিনিয়ত নানা ঘটনা ঘটে। কোনোটা এমনি মনে থাকার মতো। কোনোটা মনে রাখতে সবাই লিখে রাখে। কোনোটা মনে রাখার চেষ্টা করে। আবার কোনোটা হারিয়ে যায়। মানুষের স্মৃতি অনেকটা টাইম মেশিনের মতো। যত বুড়োই হোক পেছনে ফিরে তাকালে অনেক কিছুই অনায়াসে ভেসে ওঠে মনের আয়নায়। ছোটবেলায় কোন রঙের কাপড় পরতেন তা কারও মনে না-ও থাকতে পারে। কিন্তু ছোটবেলার স্কুলের কথা তার ঠিকই মনে হবে। এ রকম জীবনের প্রত্যেকটি ধাপের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা সবারই মনে থাকবে। মনে থাকবে ছোটবেলার বন্ধু-বান্ধবের কথা। নিজ বাড়িটার কথা। কোথায় কোথায় ছিলেন ইত্যাদি। একইসঙ্গে কারও সময়কে সঙ্গে নিয়েও টাইম মেশিনের মাধ্যমে যে কেউ ফিরে যেতে পারেন অতীতে। এই সময় তিনি এখানে ছিলেন। তারপর পাঁচ বছর আরেক জায়গায়। এরপর অন্যখানে। এভাবে মনে মনে হয়তো একটা জীবনীগ্রন্থও দাঁড় করিয়ে ফেলতে পারেন।
তবে এসব মানুষের কল্পনায়ই সম্ভব। কল্পনায় নিজেকে ছোটবেলার সে খোকা ভাবা যাবে, বাস্তবে তার সাক্ষাৎ পাওয়া যাবে না। স্মৃতি হাতড়িয়ে নিজেকে নব্বই দশকের এক জায়গায় আবিষ্কার করা যাবে, বাস্তবের সময়কে সেখানে নেওয়া যাবে না। সেরা ছাত্র হিসেবে ক্লাসে ভালো করার জন্য শিক্ষকের বাহবা দেওয়ার দিনটিকে কেবল স্মৃতিতেই সযতনে রেখে দিতে হবে। মায়ের সেদিনের আদরমাখা চুমোটিও স্মৃতির বিষয়ই।
মানুষ হয়তো নানা দিক থেকেই শক্তিশালী। কিন্তু মানুষের এমন অনেক দুর্বলতা আছে যেখানে সবাই সত্যিই অসহায়। প্রকৃতির নিয়মের বাইরে কেউ যেমন ছোট হতে পারে না তেমনি বড় হওয়াও সম্ভব নয়। মানুষ অবশ্য তার অনেক অক্ষমতাও জয় করতে পারে নিজের কল্পনা শক্তির দ্বারা। কল্পনায় যে কেউই নিজেকে রাজা ভাবতে পারেন। রাস্তায় হাঁটার সময় পাশ দিয়ে ল্যান্ডক্রুজার নিয়ে যাওয়া ব্যক্তির স্থলেও নিজেকে ভাবার সুযোগ আছে। সুযোগ আছে বিশতলা বিল্ডিংয়ের মালিক ভাবার। এসব হয়তো কারও জন্য নিছকই ভাবনা। কারও জন্য স্বপ্নও হতে পারে।
মনোজগতে এ রকম কত কিছুই না খেলা করে। মুহূর্তে কেউ চলে যেতে পারেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। ভাবতে পারেন স্ট্যাচু অব লিবার্টির পাশ দিয়ে চলছি। সেখান থেকে যুক্তরাজ্য কিংবা ইউরোপ ঘুরে আসাও অসম্ভব নয়। মায়াবী নানা বিষয়ও মানুষ কল্পনা করতে পারে। তবে সেসব কল্পনা থেকে জীবনে ফিরে আসার নিয়ন্ত্রণটাও নিজের হাতে থাকা প্রয়োজন।
Time-Machineবিচিত্র দুনিয়ায় মানুষের প্রকৃতিও বিচিত্র। প্রত্যেকটি মানুষ একে অপরের চেয়ে আলাদা। কোটি কোটি মানুষের মধ্যে প্রত্যেকের পরিচিত মানুষটি চিনতে কেউই বেগ পায় না। প্রত্যেক মানুষই একদিন হারিয়ে যাবে চিরদিনের জন্য। মানুষ যেমন টাইম মেশিনের মাধ্যমে অতীত জীবনকে হাজির করতে পারে তেমনি হারিয়ে যাওয়া মানুষকেও কল্পনায় দেখতে পায়। একসঙ্গে স্মৃতিগুলো আওড়ায়। এর দ্বারা যেমন কেউ অতীত স্মরণ করতে পারে, তেমনি ভবিষ্যতেও কোথাও নিজেকে কল্পনা করতে পারে। স্মৃতিকাতর মানুষের এই আশ্চর্য ক্ষমতা বলার অপেক্ষা রাখে না। বিজ্ঞানীরা টাইম মেশিন আবিষ্কারে নিরন্তর গবেষণা করছেন। কিন্তু মানুষের এই স্মৃতির টাইম মেশিন সত্যিই বিস্ময়কর। আসলে তার চেয়ে বিস্ময়কর মানুষ নিজে।

ট্যাগঃ , , , , , , ,

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


Warning: First parameter must either be an object or the name of an existing class in /home/mahfuzma/public_html/wp-content/plugins/bit-form/includes/Admin/Form/Helpers.php on line 119

Warning: First parameter must either be an object or the name of an existing class in /home/mahfuzma/public_html/wp-content/plugins/bit-form/includes/Admin/Form/Helpers.php on line 119

Warning: First parameter must either be an object or the name of an existing class in /home/mahfuzma/public_html/wp-content/plugins/bit-form/includes/Admin/Form/Helpers.php on line 119