Tag Archives: সমাজ-সংস্কৃতি

‘মানুষমারা’ বদলে ‘মানুষগড়া’

মানুষ গড়া যে বিদ্যালয়ের কাজ, তার নাম মানুষ মারা হয় কীভাবে! বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীরা কেবল নির্দিষ্ট সিলেবাস সম্পন্ন করতেই যায় না, একই সঙ্গে জীবন গড়ার শিক্ষা নিতেও যায়। সেখানে একটি বিদ্যালয়ের নাম ‘মানুষমারা’ হওয়া বিস্ময়করই বটে। সেটি নিয়ে সমালোচনা হওয়া অস্বাভাবিক নয়। তাই অবশেষে নীলফামারী জেলার সদর উপজেলার ‘মানুষমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়’-এর নাম এ বছর ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় পরিবর্তন করে দিয়েছে ‘মানুষগড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়’। এভাবে নাম পরিবর্তন কিংবা নাম সংশোধনের বিষয়টি নতুন নয়। মানুষ, স্থান, স্থাপনা কিংবা প্রতিষ্ঠানের নাম রাজনৈতিক, সামাজিক কিংবা পারিপার্শ্বিক নানা কারণেই পরিবর্তন হয়ে আসছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ রকম প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ কিছু স্থানের নাম নিয়ে সমালোচনা আমরা দেখেছি। সম্প্রতি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর শ্রুতিমধুর ও সুশোভন নয় এমন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনের প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন কেবল ‘মানুষগড়া’ দিয়েই শুরু হয়নি, এর আগেও নেত্রকোনার ‘ছেছড়াখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়’-এর নাম বদলে ‘শহীদ স্মৃতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়’ হয়। ফলে নাম পরিবর্তনে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের এ প্রজ্ঞাপন নতুন বিষয় নয়। তবে আগে হয়তো এ রকম কয়েকটি বিদ্যালয়ের পরিবর্তন হয়েছে; এবার সেটি ব্যাপকভাবে করার চিন্তা করছে কর্তৃপক্ষ। Continue reading

‘হাসি’র সংস্কৃতি

দুই ঠোঁট আর চোখের কারসাজিতে প্রকাশ পায় হাসি। সাধারণভাবে হাসি আনন্দের বহিঃপ্রকাশ হলেও নানা কারণে মানুষ হাসতে পারে। অনেকে বলেন, সুস্থতার টনিক হলো হাসি। হাসার পক্ষে বৈজ্ঞানিক যুক্তিরও অভাব নেই। হাসিখুশি থাকলে নাকি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে, রক্তপ্রবাহে বেড়ে যায় ভাইরাস-রোধী কোষের সংখ্যা। এতে ভাইরাসজনিত রোগ থেকে সহজে মুক্তি পাওয়া যায়। তবে থাইল্যান্ডের মানুষদের হাসার রহস্য অবশ্য আরেকটু গভীরে। ১৫ সেপ্টেম্বর বিবিসিতে প্রকাশিত ‘হোয়াই থাই পিপল লাভ টু লাফ’ শিরোনামের প্রতিবেদনে থাইল্যান্ডের মানুষের হাসার রহস্য উঠে আসে। তারা যখন কোনো অনাকাগ্ধিক্ষত পরিস্থিতির সম্মুখীন, তখনও হাসে। যুক্তি হলো, তারা খারাপ পরিস্থিতিকেও ইতিবাচক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখে।
বিবিসির খবরে প্রতিবেদক থাইল্যান্ডের এক লেখক ও চিত্র পরিচালকের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি বলছেন, থাইল্যান্ডের মানুষ হাসিখুশি থাকে, পরস্পর কথাবার্তায় তারা নেতিবাচক বিষয় পরিহার করে, কোনো সমস্যার বিষয়ও তারা সচরাচর উল্লেখ করে না। এমনকি নেতিবাচক কোনো বিষয়কে কীভাবে ইতিবাচক হিসেবে উপস্থাপন করবে, সে চেষ্টাই করে। ধরা যাক বন্যা চলছে। এ সময় তারা মানুষের আনন্দের জন্য নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। Continue reading