Monthly Archives: আগস্ট ২০১৫

বইয়ের আশ্রয়ের খোঁজে!

Bookকখনও কখনও পত্রিকার সংবাদের চেয়ে সংবাদসংশ্লিষ্ট ছবি হৃদয়গ্রাহী হয়। পড়ার চেয়ে চোখে দেখে ঘটনার বাস্তবতা বোঝা সহজ হয়। সোমবার সমকালের লোকালয়ে প্রকাশিত সংবাদসংশ্লিষ্ট এই ছবি তার প্রমাণ। ছবিটি দেখাচ্ছে, একটি শিশু বুকসমেত পানি ডিঙিয়ে যাচ্ছে, তার হাতে বই। পানি বুকের ওপর উঠলেও বই ভিজতে দেয়নি। দুই হাতে বই উঁচিয়ে ধরে আছে শিশুটি।
বগুড়ায় যমুনা নদীর পানি বাড়ায় সেখানকার সারিয়াকান্দির নতুন এলাকা প্লাবিত হয়ে গেছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে সেখানকার মানুষ। পানি যেমন মানুষের বসতবাড়িতে উঠেছে, স্বাভাবিকভাবেই সেখানকার বিদ্যালয়ও রক্ষা পায়নি। ফলে প্রশাসন সেখানে শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রেখেছে এক সপ্তাহের জন্য। কিছু বিদ্যালয়ের ক্লাস কাছাকাছি বাঁধের ধারে নিয়ে আসা হয়েছে। তবে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কম। চারদিকে পথঘাট ডুবে যাওয়ায় তাদের পক্ষে ক্লাস করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। কোনো কোনো বিদ্যালয়ে অবশ্য পানি ওঠেনি, সেখানে আশ্রয় নিয়েছে পানিবন্দি অনেক পরিবার। ছবিটি সে এলাকার। ক্যাপশন বলছে, ঘরে পানি ওঠায় শিশুটির বই ভিজে গেছে। বইয়ের আর ক্ষতি যাতে না হয় তাই সেগুলো দুই হাত উঁচিয়ে ধরে কোনো নিরাপদ আশ্রয়ে যাচ্ছে। Continue reading

ডিগ্রি কি জব টিকিট?

graduation_0বুধবার ইংল্যান্ডের উচ্চশিক্ষা নিয়ে এক গবেষণার খবর দিয়েছে বিবিসি। সিআইপিডি নামক গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি বলছে, ইংল্যান্ডের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করা অধিকাংশ গ্র্যাজুয়েটই ‘ননগ্র্যাজুয়েট’ চাকরি করছে। অর্থাৎ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সর্বোচ্চ ডিগ্রি নিয়ে একজন শিক্ষার্থীর যে ধরনের কাজ করার কথা, তার চেয়ে নিম্ন পর্যায়ের কাজ করছে ৫৮ দশমিক ৮ ভাগ গ্র্যাজুয়েট। এর প্রতিক্রিয়ায় সেখানকার গার্ডিয়ান পত্রিকায় কাহিন্দে এন্ড্রুজ লিখেছেন, ‘ইট ইজ অ্যা ডিগ্রি, নট অ্যা টিকিট টু অ্যা জব’_ এটা একটা ডিগ্রি মাত্র, চাকরিতে প্রবেশের টিকিট নয়। এ গবেষণা নিয়ে সেখানে আলোচনা-সমালোচনা হতেই পারে। বিষয়টা যে আমাদের জন্য সম্পূর্ণভাবে প্রাসঙ্গিক, তা দেখার মতো। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েটদের কতভাগ ননগ্র্যাজুয়েট চাকরি করছেন, তা নিয়ে দেশেও ভালো গবেষণা হতে পারে।
এটা সবাই জানেন, দেশে অনেক চাকরিতে, বিশেষ করে সরকারি চাকরিতে যেখানে যোগ্যতা হিসেবে এইচএসসি চাওয়া হয়, সেখানে ডিগ্রি-অনার্স পাসকৃতরাও হুমড়ি খেয়ে পড়েন। আর এখানকার বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স পাস করা বিপুল অধিকাংশই অনার্স সমমানের যোগ্যতার চাকরি করছেন। এমনকি অনেকে তা চেয়েও পাচ্ছেন না। Continue reading

স্মৃতির টাইম মেশিন

Memory-মানুষের জীবনে প্রতিনিয়ত নানা ঘটনা ঘটে। কোনোটা এমনি মনে থাকার মতো। কোনোটা মনে রাখতে সবাই লিখে রাখে। কোনোটা মনে রাখার চেষ্টা করে। আবার কোনোটা হারিয়ে যায়। মানুষের স্মৃতি অনেকটা টাইম মেশিনের মতো। যত বুড়োই হোক পেছনে ফিরে তাকালে অনেক কিছুই অনায়াসে ভেসে ওঠে মনের আয়নায়। ছোটবেলায় কোন রঙের কাপড় পরতেন তা কারও মনে না-ও থাকতে পারে। কিন্তু ছোটবেলার স্কুলের কথা তার ঠিকই মনে হবে। এ রকম জীবনের প্রত্যেকটি ধাপের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা সবারই মনে থাকবে। মনে থাকবে ছোটবেলার বন্ধু-বান্ধবের কথা। নিজ বাড়িটার কথা। কোথায় কোথায় ছিলেন ইত্যাদি। একইসঙ্গে কারও সময়কে সঙ্গে নিয়েও টাইম মেশিনের মাধ্যমে যে কেউ ফিরে যেতে পারেন অতীতে। এই সময় তিনি এখানে ছিলেন। তারপর পাঁচ বছর আরেক জায়গায়। এরপর অন্যখানে। এভাবে মনে মনে হয়তো একটা জীবনীগ্রন্থও দাঁড় করিয়ে ফেলতে পারেন। Continue reading